সিলেটে কোটি টাকা নিয়ে উধাও মেঘনা লাইফের ইনচার্জ শাহীন

Published: 2019-04-15 16:47:30

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটে প্রায় চার শতাধিক গ্রাহকদের প্রায় কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়েছেন মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের কর্মকর্তা এইচ এম শাহীন প্রতারণার মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রায় দুই মাস ধরে পলাতক রয়েছেন। এইচ এম শাহীন মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের সিলেট জোনের ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সোমবার সকালে নগরীর করিম উল্লাহ মার্কেটস্থ মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর কার্যালয়ে পাওনা টাকার দাবীতে হাজির হন শতাধিক ভুক্তভোগি। তাদের বেশীরভাগই নিম্ন আয়ের কর্মজীবী নারী। এসময় তারা কোম্পানীর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপর চড়াও হন এবং টাকা ফেরত চান।

প্রতারণার শিকার হওয়া গ্রাহক মো. সিরাজ, সেলিনা বেগম ও সোনিয়া আক্তার জানিয়েছেন- দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে এইচ এম শাহীন মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করতেন এবং জমার বিপরীতে গ্রাহকদের রশিদ দিতেন। কিন্তু ২০১৮ সালের শেষের দিকে তিনি প্রায় চারশতাধিক গ্রাহকের কাছ থেকে প্রায় এক কোটি টাকা জমা নিলেও সেই গ্রাহকদের কোন জমা রশিদ দেননি। এবছরের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত তিনি এভাবে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নেন। দীর্ঘদিনের লেনদেনের সম্পর্কের প্রেক্ষিতে গ্রাহকরাও তাকে বিশ্বাস করে টাকা দিয়ে দেন। টাকা জমা দেয়ার বেশ কয়েকদিন পরও জমা রশীদ কিংবা প্রাপ্ত টাকা না দেয়ায় তারা কোম্পানীর দ্বারস্থ হন। তখন দেখা যায় এইচ এম শাহীন প্রতিষ্ঠানের গাড়িসহ পলাতক রয়েছেন।

এ ব্যপারে মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর সিলেট অফিসের কর্মকর্তা নিবাস রঞ্জন চয়ন বলেন- গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকে এইচ এম শাহীন পলাতক রয়েছেন। তিনি উধাও হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত ২৮৬ জন গ্রাহক আমাদের অফিসে এসে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন। আমরা তার সাথে যোগাযোগ করা অনেক চেষ্টা করেও তাকে পাইনি। তাই আমরা কোম্পানীর প্রধান কার্যালয়ে বিষয়টি অবগত করি। এর প্রেক্ষিতে কোম্পানির ডিএমডি রকিবুল হাসান সুমন সিলেটে এসেছেন। তিনি গ্রাহকদের সাথে কথা বলছেন।

সোমবার দুপুরে মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় ডিএমডি রকিবুল হাসান সুমন অর্ধশত গ্রাহকদের সাথে কথা বলছেন। তাদের অভিযোগ শুনছেন।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •    আলোচিত ওসি শিবলীর মামলা ধামাচাপা নিয়ে তোলপাড়
  •    অবশেষে সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বারের মেলা ভাঙলো প্রশাসন
  •    জাফলংয়ে ব্যবসায়ীর উপর ডাকাতি মামলা পুলিশের!
  •    ডিসেম্বরে ভোলাগঞ্জে বসছে বর্ডার হাট
  •    কুলাউড়ায় সাংবাদিক চম্পু’র ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন
  •    লাউয়াছড়া থেকে নবজাতক উদ্ধার
  •    তিন দাবিতে ১ মাসের আল্টিমেটাম সিলেটের কলেজ শিক্ষকদের
  •    ‘জৈন্তার’ ঘরে ঘরে গ্যাস সরবরাহের দাবিতে মানববন্ধন
  •    সিলেটে চাঁদাবাজসহ অপহরক চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার
  •    বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের কাছে ইউএনও’র দুঃখ প্রকাশ
  •    বিয়ানীবাজারে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
  •    সিলেটে পুলিশের র্সোস ছিনতাইকারী সজল!
  •    নারী নেত্রী শিউলি আক্তারের প্রতিবাদ : প্রতিবেদকের বক্তব্য
  •    সিলেটে আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে ‘সম্পদ’ আত্মসাৎ!
  •    সিসিকের অভিযান : ক্বিন ব্রিজ এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
  • সাম্প্রতিক সিলেট খবর

  •   আলোচিত ওসি শিবলীর মামলা ধামাচাপা নিয়ে তোলপাড়
  •   অবশেষে সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বারের মেলা ভাঙলো প্রশাসন
  •   জাফলংয়ে ব্যবসায়ীর উপর ডাকাতি মামলা পুলিশের!
  •   কুলাউড়ায় সাংবাদিক চম্পু’র ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন
  •   লাউয়াছড়া থেকে নবজাতক উদ্ধার
  •   ‘জৈন্তার’ ঘরে ঘরে গ্যাস সরবরাহের দাবিতে মানববন্ধন
  •   সিলেটে চাঁদাবাজসহ অপহরক চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার
  •   বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের কাছে ইউএনও’র দুঃখ প্রকাশ
  •   বিয়ানীবাজারে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
  •   সিলেটে পুলিশের র্সোস ছিনতাইকারী সজল!
  •   নারী নেত্রী শিউলি আক্তারের প্রতিবাদ : প্রতিবেদকের বক্তব্য
  •   সিলেটে আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে ‘সম্পদ’ আত্মসাৎ!
  •   সিসিকের অভিযান : ক্বিন ব্রিজ এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
  •   সিলেটে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচী শুরু
  •   জায়ান চৌধুরীর মৃত্যুতে সিলেটে তাঁতী লীগের দোয়া মাহফিল
  •