ধ্বসে পড়লো গোলাপগঞ্জের বাঘার কর্মসৃজন প্রকল্পের মাটির রাস্তা

Published: 2018-05-05 22:27:12

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাঘা ইউপিতে চলতি বছর কর্মসৃজন প্রকল্পের ১২ লক্ষ টাকার মাটির কাজ বৃষ্টির শুরুতেই গলে পড়েছে। মূল সড়ক থেকে কমপক্ষে ২০ ফুট দূর থেকে মাটি খনন করে রাস্তা ভরাটের প্রচলিত নিয়ম থাকলেও চেয়ারম্যান ছানা মিয়া এসব নিয়ম না মেনে নিজস্ব এস্কেভেটরের মাধ্যমে রাস্তার একেবারের পাশ থেকে মাটি উত্তোলন করার কারণে বৃষ্টির শুরুতেই রাস্তার মাটি গলে আবার গর্তে পড়েছে। এতে ভোড়ান্তিতে পড়েছেন ঐ এলাকার লোকজন।

তারা বলছেন, রাস্তার একেবারেই পাশ থেকে মাটি না এনে কিছুটা দূর থেকে মাটি উত্তোলন করে রাস্তা ভরাট করলে রাস্তার মাটি গলতো না। চেয়ারম্যানের এস্কেভেটরের মাধ্যমে দূর থেকে মাটি উত্তোলন করা যায় না। তাই রাস্তার একেবারেই পাশ থেকে মাটি উত্তোলন করা হয়েছে। শ্রমিকের মাধ্যমে মাটির কাজ করানো হলে রাস্তার মাটি এতো তাড়াতাড়ি গলতো না। চেয়ারম্যান ছানা মিয়ার দাবী, এলাকার জনগণ অসচেতন। তারা রাস্তায় মাটি দিতে নারাজ। তাই রাস্তার পাশ থেকে মাটি উত্তোলন করা হয়েছে। এমনকি নতুন মাটির রাস্তা দিয়ে ট্রাক চলাচল করার কারণে মাটি ধ্বসে পড়েছে। উত্তর গোলাপনগর গ্রামের এনাম উদ্দিন বলেছেন, চেয়ারম্যানের এস্কেভেটরের মাধ্যমে কাজ করার কারণে রাস্তার মাটি ধ্বসে আবার গর্তে পড়েছে।

এস্কেভেটরের মাধ্যমে দূর থেকে মাটি উত্তোলন করা যায় না। তাই রাস্তার পাশ ঘেষে গর্ত করে মাটি উত্তোলন করা হয়েছে। এখলাছপুর গ্রামে জসিম উদ্দিন বলেন, রাস্তার পাশে গর্ত করে মাটি উত্তোলন করার কারণে রাস্তার মাটি ধ্বসে পড়েছে। রাস্তার মধ্য দিয়ে ট্রাক চালানোর যে দাবী চেয়ারম্যান করেছেন তা হাস্যকর। এই রাস্তা ট্রাকের উপযোগী নয়। রাস্তার মাটি গ্রামবাসী তাদের নিজস্ব জমি থেকে দিতে রাজি ছিলেন এবং দিয়েছেনও। যে গ্রামের মানুষজন তাদের রাস্তার মাটি কাজের জন্য চাঁদা উত্তোলন করে এস্কেভেটরের খরচ দিয়েছে তাদের কাছে মাটি কোন ব্যাপার না। রাস্তার জন্য আমাদের ফসলি জমির মাটি আমরা দিয়েছি।

গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাঘা ইউপিতে চলতি বছর ৫টি কর্মসৃজন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এসব প্রকল্প শ্রমিক দ্বারা করানোর নিয়ম থাকলেও চেয়ারম্যান ছানা মিয়া নিজস্ব এস্কেভেটরের মাধ্যমে কাজ করিয়েছেন। সরকারের প্রকল্প নিজস্ব অর্থায়নে দাবী করে এলাকা থেকে উত্তোলন করা হয়েছে মোটা চাঁদা। প্রকল্প গুলো হচ্ছে এখলাছপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হইতে জামে মসজিদ পর্যন্ত । কর্মসৃজন প্রকল্পের প্রকল্প বরাদ্ধ তিন লক্ষ ২০ হাজার টাকা। ৪০ জন শ্রমিক দিয়ে করানো হয়েছে বলে তা দেখানো হয়েছে। প্রকল্প সভাপতি সূর্যবান বেগম। উত্তর গোলাপনগরের হকির উলির টিলা থেকে আব্দুল মালিকের বাড়ী পর্যন্ত মাটির কাজ কর্মসৃজন প্রকল্পের বরাদ্দ তিন লক্ষ ১২ হাজার টাকা। এ প্রকল্পের শ্রমিক হচ্ছেন ৩৯ জন। প্রকল্প সভাপতি মরম আলী। এখলাছপুর রাস্তার মাটির কাজ বাবাদ টিআর প্রকল্পের প্রকল্প বরাদ্ধ দুই লক্ষ ২৪ হাজার টাকা, প্রকল্প সভাপতি আলা উদ্দিন। বেদাইরটুলি থেকে গন্ডামারা পর্যন্ত রাস্তার মাটির কাজ বাবাদ বরাদ্ধ তিন লক্ষ ৩৬ হাজার টাকা। এ প্রকল্পের শ্রমিকের সংখ্যা দেখানো হয়েছে ৪২ জন। প্রকল্প সভাপতি ফাতেমা বেগম । চলতি বছর বাঘা ইউপিতে মোট ৫টি কর্মসৃজন প্রকল্প রয়েছে।

এছাড়া টিআর, কাবিটার রয়েছে অনেক গুলো প্রকল্প। এসব প্রকল্প শ্রমিকদ্বারা করানোর নিয়ম থাকলেও করানো হয়েছে চেয়ারম্যানের নিজস্ব স্কেলেটার মেশিন দ্বারা। প্রকল্প ব্যয় বাবত মোটা অংকের বরাদ্ধ থাকলেও তার বাস্তবায়ন হয়েছে যৎসামান্য। প্রকল্প সভাপতিকে পাশ কাটিয়ে চেয়ারম্যান নিজে তা বাস্তবায়ন করছেন। উত্তর গোলাপনগর গ্রামের প্রবাসী আব্দুল হাসিম বলেন, চেয়ারম্যানের নিজস্ব উদ্যোগে বাস্তবায়ন করা হয়েছে আমাদের রাস্তার মাটির কাজ। চেয়ারম্যানের স্কেলেটারের সাহায্যে কাজ করার কারণে স্কেলেটারের চালকের মজুরী ও তেল খরচ বাবত খরচ আমরা এলাকা থেকে চাঁদা তুলে দিয়েছি। আমি নিজে দুই হাজার টাকা চাঁদা দিয়েছে। বাঘা ইউপির মহিলা সদস্য ফাতেমা বেগম বলেন, বেদাইরটুলি থেকে গন্ডামারা পর্যন্ত রাস্তার মাটির কাজের সভাপতি আমি। আমি গরীব মানুষ। শ্রমিকের টাকা দিতে পারবো না। তাই চেয়ারম্যান বললেন, তিনি এই কাজ করাবেন। সময়মতো প্রকল্পের টাকা উঠিয়ে চেয়ারম্যানকে দিতে। এর বেশি কিছু আমি জানিনা। কোন প্রকল্পের কাজ হচ্ছে তাও জানিনা। এখন প্রকল্পের টাকা উঠানো হয়েছে কিনা তাও আমি জানিনা।
চেয়ারম্যান ছানা মিয়া বলেন, এলাকার মানুষ অসচেতন। তাঁরা রাস্তায় মাটি দিতে রাজি ছিলেন না। তাই রাস্তার পাশ থেকে মাটি উত্তোলন করা হয়েছে। তাছাড়া গ্রামের কাঁচা রাস্তা দিয়ে ট্রাক পরিচালনা করার কারণে রাস্তা ধ্বসে পড়েছে।


শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •    জামালগঞ্জে ইজারাদারের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ
  •    সাংবাদিক লুৎফুরের সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল
  •    আফগানিস্তান সিরিজের দলে বালাগঞ্জের রাহী
  •    হবিগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষ : শিশুসহ আহত অর্ধশতাধিক, আটক ১৩
  •    মাধবপুরে শিশু খুন
  •    চুনারুঘাটে গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২
  •    নগরীতে নকল ঘি’র কারখানাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
  •    সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলে ধান সংগ্রহ শুরু হয়নি এখনও
  •    নবীগঞ্জে দায়সারা কাজ, বাঁধের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ
  •    মহানবী (সা.)-কে কটুক্তি, মসজিদে তালা দেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন
  •    ছাতকে ফাইল বন্দি কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ
  •    এবার ফুলকলিকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা
  •    কন্ঠশিল্পী হিমাংশু বিশ্বাস অসুস্থ, উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ
  •    আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলার ১৪ বছর আজ
  •    ছাত্রদল নেতা সাজ্জাদের কারামুক্তি, জেলগেইটে সংবর্ধনা
  • সাম্প্রতিক সিলেট খবর

  •   জামালগঞ্জে ইজারাদারের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ
  •   হবিগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষ : শিশুসহ আহত অর্ধশতাধিক, আটক ১৩
  •   মাধবপুরে শিশু খুন
  •   চুনারুঘাটে গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২
  •   নগরীতে নকল ঘি’র কারখানাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
  •   সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলে ধান সংগ্রহ শুরু হয়নি এখনও
  •   নবীগঞ্জে দায়সারা কাজ, বাঁধের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ
  •   মহানবী (সা.)-কে কটুক্তি, মসজিদে তালা দেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন
  •   ছাতকে ফাইল বন্দি কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ
  •   এবার ফুলকলিকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা
  •   কন্ঠশিল্পী হিমাংশু বিশ্বাস অসুস্থ, উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ
  •   ছাত্রদল নেতা সাজ্জাদের কারামুক্তি, জেলগেইটে সংবর্ধনা
  •   সিলেট সরকারি কলেজের সামন থেকে ইয়াবা ও গাঁজাসহ আটক ২
  •   বালাগঞ্জে এবারও রমজানে পণ্যের দাম চড়া
  •   নগরীতে দুই ঘন্টার অভিযানে ৩২ মাদকসেবীকে কারাদন্ড